Categories
উৎসব সংখ্যা ২০১৯

উৎসব সংখ্যা ২০১৯

খাস কলকাতায় বাজি ও মাইকের দূষণ রুখতে নজরদারি আছে। কিন্তু রাজ্যের বিভিন্ন জেলা শহরে কি কালীপুজো ও দেওয়ালিতে এই উপদ্রব রুখতে পারবে প্রশাসন? বিভিন্ন জেলা শহরে উৎসবের বহর যে ভাবে বাড়ছে, তাতে এই প্রশ্ন জোরালো ভাবে তুলছেন পরিবেশকর্মীদের অনেকে। তবে রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ এবং রাজ্য পুলিশের দাবি, জেলাগুলিতেও আগের বছরের তুলনায় এ বার নজরদারি বাড়ছে।

শব্দবাজির দাপটে কিছুটা রাশ টানা গেলেও গত কয়েক বছরে আতসবাজির দূষণ মারাত্মক হয়ে উঠেছে। গত বছর কালীপুজো ও দেওয়ালির দিনে রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের বায়ুদূষণ সংক্রান্ত তথ্যে নজর রাখলেও কলকাতা ছাড়া জেলা শহরগুলিতেও তা দেখা যাচ্ছে। শিলিগুড়িতে বাতাসে ভাসমান সূক্ষ্ম ধূলিকণার মাত্রা ৩০০ থেকে ৫০০ পর্যন্ত উঠেছিল। আসানসোলের ক্ষেত্রেও তা ৩০০-র বেশি ছিল। অর্থাৎ মারাত্মক দূষণ। পরিবেশকর্মীদের অভিযোগ, দূষণের নিরিখে অন্যান্য ছোট শহরও কম যায়নি। শব্দের দাপটও (বিশেষ করে ডিজে বক্স) মারাত্মক ছিল। এ বছরও কালীপুজোর আগে থেকেই জেলা এবং শহরতলির বিভিন্ন এলাকায় সেই দাপট শুরু হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী, রাত ৮টা থেকে ১০টার মধ্যে বাজি ফাটাতে হবে। কিন্তু সেই নির্দেশ সব জায়গায় মানা হবে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।

utsav

সম্পাদকীয়

প্রকাশ হল ‘উৎসব সংখ্যা ২০১৯’। সবার শেষে। একদম অন্তিমলগ্নে। সত্যি বলতে, উৎসব আমাদের মনে বিরাজ করে। মন যখনই ফুরফুরে হয়ে ওঠে তখনই উৎসব। এবার প্রথম ‘উৎসব সংখ্যা’ ওয়েবে প্রকাশ পেল।

পরিকল্পনামতো অনেক আগে থেকেও কাজ শুরু করেও সময়মতো প্রকাশ করতে পারলাম না। এই দায় পুরোটাই আমার। অত বড়ো ভলিউমে ওয়েবে কাজ করতেও সমস্যা হয়েছে। ভুল-ত্রুটি থাকলে আশা করি ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

চারিদিকে আলোর ফোয়ারা। আমরা ভূতচতুর্দশীতে এই ওয়েবের আলো কিছুটা যদি ছড়িয়ে দিতে পারি সার্থক হব। আমরা চেষ্টা করেছি নানা গুরুত্বপূর্ণ লেখা প্রকাশ করার। সংখ্যাটির পড়তে কোনো সাবক্রিপশন চার্জ লাগবে না। তবে সবার কাছে অনুরোধ কারো লেখা ভালো লাগলে লেখাটি শেয়ার করে বন্ধুদেরও পড়ার সুযোগ করে দিন। আর মতামত আমাদের ওয়েবসাইটেই দিন। এতে আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামতটি থেকে যাবে।

তাহলে চলুন ‘উৎসব’-এ ভাসি। সমস্ত অন্ধকার আলোর জোছনায় গার্হস্থ্য হোক।

প্রবন্ধ

গল্প

গদ্য

কবিতা

অনুবাদ

অপ্রকাশিত গাণিতিক ভাবনা

অপ্রকাশিত সাক্ষাৎকার

অপ্রকাশিত চিঠি

সম্পাদক: সেলিম উদ্দিন মণ্ডল
সহ-সম্পাদক: শতানীক রায়
প্রচ্ছদ ছবি: পল্লবী ঘোষ

বিশেষ কৃতজ্ঞতা: মোনালিসা, রাজদীপ পুরী ও টিম তবুও প্রয়াস

2 replies on “উৎসব সংখ্যা ২০১৯”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *