Categories
কবিতা

অরিত্র সোমের কবিতা

পিকোসোর মর্গ

শরীর খুঁটে খুঁটে, ইদুরটা চলে গেছে
       এইমাত্র
বেলা পড়ে এসেছে— গোটা ঘরটায় এখন
তিন তিনটে

Categories
কবিতা

সঞ্জনা রায়ের গুচ্ছকবিতা

বেপরোয়া রাত্রিগুলি

আর কোনো ইশারায় তোমাকে ডাকতে চাই না, চাই যে
খরস্রোতা আমার নিশ্বাস আছড়ে পড়ুক
তোমার স্নায়ুর সূক্ষ্ম বুননে।
ঈষৎ হেলানো হিজল গাছ সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছে।

Categories
কবিতা

পিয়াল রায়ের গুচ্ছকবিতা

ঘুম

মাঝেমাঝে ভাবি ঘুমিয়ে পড়ব এবার
স্বপ্ন দেখব
স্বপ্নে সব ভাঙা জুড়ে দেওয়া যায় সহজে
খুব সহজে ছুঁয়ে থাকা যায় প্রতিবেশির হাত

Categories
কবিতা

শতদল মিত্রের গুচ্ছকবিতা

মাধুকরি


যখনই বৃষ্টি পড়ে, আমি
যমুনার চরে রাত বসত করাই
যমুনা ফকিরি জানে ভালো
আঁজলা ভরা মাধুকরি—

Categories
কবিতা

সুদীপ্ত চ্যাটার্জীর গুচ্ছকবিতা

আঙুল সিরিজ

বৃদ্ধাঙ্গুলি

তুমি ভালো ভাবেই জানো, অল্প বয়সেই চুলে পাক ধরেছে
তাই বলে রাখছি: আমার সাথে ইয়ার্কি ছেড়ে,
ভেবে চিন্তে কথা বলো
তুমি শাসক অথবা বিরোধী— যেই হও!

Categories
গল্প

নীহারুল ইসলামের গল্প

খোদার মর্জি

সিলেপচিতে হাত ধোওয়াতে গিয়ে সামান্য একটু হাতে হাত ছোঁয়া। নসিবুনের মগজে যেন কারেন্টের শক লাগে। শরীরে শিহরণ খেলে যায়। লজ্জা পায়।

Categories
কবিতা

অর্ণব রায়ের গুচ্ছকবিতা


রাক্ষসবর্গে জন্ম। তার সন্ধ্যাতারায় দাগ ছিল করতলে জরুল,
মুকুল
শুকায়ে রয়েছে তারপর থেকে, ঝরে না, বর্ষে বর্ষে ফল,
ধরে না,
গাছপালা আপামর শুধুমাত্র ভীত স্মৃতি হয়ে

Categories
কবিতা

অত্রির গুচ্ছকবিতা

ইঁদুরমঙ্গল ও টম হ্যাঙ্কস


অসহায় খ্রিস্টকে কোমরভরতি জলে নামিয়ে দাও। ভাঙা ইংরেজি। ঠোঁটের জাহাজ। পশুজন্ম। ফেরিঘাটে হাহাকারময় ট্রান্সপোর্টেশন। সকালের ট্রেনে তুমি চলে গেলে। এখন তুমি কবিতা হয়ে মাংসের বক্সে যাও।

Categories
কবিতা

বিশ্বদেব মুখোপাধ্যায়ের গুচ্ছকবিতা

ঠাকুমা

হেমন্ত শেষের রোদ্দুর
ক্রমশ নরম হয়ে আসে।
বাতাসে শীতের মৃদু সুর
ভাসিয়ে ধুনুরি যায় আসে।

Categories
কবিতা

বৈশাখী রায়চৌধুরীর গুচ্ছকবিতা

নদীকেন্দ্রিক

জানালা জুড়ে স্নানঘর
কে যেন খুলে দিয়ে গেছে কলঘরের জ্যোোৎস্না

ভেসে গেছে প্রলাপ
অসুখ রাঙানো উঠানে শুশ্রূষা নিয়ে ফোটে বেদানা বাগান