Categories
কবিতা

অনুপম মণ্ডলের গুচ্ছকবিতা

গন্ধর্ব-নগরের জন্য লেখা

মৌরির গন্ধের মতো, রক্তিম, তাঁর আভোগ, ঢলে পড়ে কোথাও বাতাসে। বাসকলতার পাশে, ঘুমের শাখাগুলো নুয়ে আছে। গিয়েছে ঝরে বটের বুড়ি পাতা। কারা, ওই থোকা থোকা আঁধার নিঙড়ায়ে, মধুকূপি ঘাসের পরে রেখে যায়।

Categories
কবিতা

দেবাশিস সাহা’র গুচ্ছকবিতা

চোতক্ষ্যাপা

দারুচিনির দেশে
কেউ কেউ নেমেছে দারুর খোঁজে
চিনি নিয়ে আগ্রহ নেই মধুমেহ প্রেমিকের

স্লেট থেকে ভাগ্যরেখা মুছে

Categories
কবিতা

মারুফ আহমেদ নয়নের গুচ্ছকবিতা

নিষেধাজ্ঞা

নিষেধাজ্ঞা জারী হলো, আমার মুখের দিকে তুমি তাকিয়ো না। এই যে উচুঁ- নিঁচু খানা-খন্দক, পাহাড়-পর্বত, আলোর তীব্র ঝলকানি, তুমি পা পিছলে পড়ে যেতে পারো। জানো তো, আমার চোয়ালে রাগী পিপঁড়েদের বাসা। চোখের ভেতর সমুদ্র। তুমি স্নানের বাসনা নিয়ে খুলে ফেললে বুকের কাঁচুলি, আমার ভীষণ ভয় করে। আমি কাউকে বলি না, তোমার প্রেমে পড়ার স্বভাবে মৃত্যু আসে।

Categories
অনুবাদ কবিতা

নিকানো পারা’র গুচ্ছকবিতা

ভাষান্তর: সোনালী চক্রবর্তী

সতর্কীকরণ

আগুন লাগলে
এলিভেটর ব্যবহার না করে
সিঁড়িটাই খুঁজে নিও,

Categories
অনুবাদ কবিতা

কেদারনাথ সিং-এর গুচ্ছকবিতা

ভাষান্তর: শানু চৌধুরী

দুপুর

একটা কবিতার পঙ্‌ক্তি
রোদ আর পাতার কথাবার্তায়
ডুবে গ্যাছে

Categories
কবিতা

তন্ময় ধরের গুচ্ছকবিতা

পথ

গভীরে কোথাও এক জন্মদাগ। নক্ষত্রের নাভিকুন্ড পুড়ছে অল্প শীতে। আমাদের খাদ্যের উত্তাপ থেকে সরে যাচ্ছে একটা জন্ম, অলখ এক তরঙ্গের দাগ। বেশি পুড়ে যাওয়া মাটির মন্দিরে প্রণাম লেখা এক অন্ধকারে দুলছে দুধলতা। তার ঠোঁট, নাভি ও মৃত্যুর সব আয়োজন মুছে গেছে। অসুখজ্যামিতির ঈশ্বরের ক্ষীণ চিৎকার দূরে কোথাও ফেলে এসেছে সন্তানপ্রভ এক আলো।

Categories
কবিতা

অভিমন্যু মাহাত’র গুচ্ছকবিতা

দানাপানি

ঝিরিহিরি পানিয়া বরষে, মধু মাসে
বঁধু, ফুল মরিলে মহক নাহি আসে।।

উতলা হয় সাঁঝ,
মন পাতালি নাই রাতে—

Categories
কবিতা

উমাপদ করের গুচ্ছকবিতা

ওলটপালট চাঁদমারি


পাবলিকের আর ষোলোকলা চাঁদ দেখা হয় না, বেচারা
       ছিলিম আর মিছিল শব্দ দুটো চোখ ঠারাঠারি
গাঁজা টানা চাঁদ বেঁকে থাকে আর কল্প-দড়ি ওঠাতে চায় বারবার
       পালবিক-মিছিল ব্যারিকেডে হুমরি

Categories
কবিতা

চন্দ্রাণী গোস্বামীর গুচ্ছকবিতা

আত্মবিশ্বাস

চ্যালেঞ্জের অভ্যাস থাকলে একেকটা অসম্ভবকে আরোহণ মনে হয়

এই যেমন পাহাড়ে আমিই প্রথম সূর্যোদয় দেখবো বলে
অন্ধকার থাকতেই খাড়াই বেয়ে উঠে আসছি,

ধারেকাছে বা খানিক দূরে রডোডেনড্রনগুলোর ক্যানভাসে

Categories
কবিতা

অচিন্ত্য রায়ের গুচ্ছকবিতা

কাঁদকাট

সৎকার করে ফিরতে দেরি হলে
মা-রেকাবিতে সাজিয়ে রাখে

ঘুঁটের ছাই, নিমপাতা।