ইন্দ্রজিৎ দত্তের কবিতা

আমি চাঁদকে ভালবাসি

টিউলিপ। থেকে টিউলিপ। আর

কথারা বেজুবাঁ বলেই
বহবছরের রুখসতে, ভেঙে পড়ছে দিল্

তুমি ডেকে দাওনি তাই রোদ ফুরিয়ে গ্যালো

সামনের ধুন। আর চিরে যাওয়া মানেই ফিরে যাওয়া

কেন যে
গেয়েছিলো রফি….

ফির মিলোগে কভি ইস বাত কা ওয়াদা কর লো

বিকেল মানেই আষাঢ়

তবুও তুমি নিরুচ্চার আর চারিদিকে জুলাই

এতটাই বন্দিশ যে গেয়ে উঠতে পারিনি
আর সারেঙ্গী নাজায়েজ

ইয়ে দিল দীওয়ানা হ্যায়, দিল তো….

ফিরলে না

চাঁদ শুধুশুধুই আলপনা এঁকে গ্যালো জল জুড়ে

বিকেল ধেয়ে আসে বিকেলে

তুমি নেই। বাট একথা
বিকেলেও নেই যেভাবে গোলাম আলি আর

দিল্ মেরা, কিউ বুঝ গয়া আওয়ার্গী..

চলে যাওয়াই শেষ কথা আর
তুমি গিয়েছ

দোপাট্টাকে কাঁটাছেঁড়া কে কবে করেছে আগে?

সন্ধ্যা নেমে এল প্রক্সি দিতে দিতে মিনিংলেস

চেয়েছিলে। গেলেও

আর এই রাত, চাঁদ যেটুকু পারাপার
কোথাও কি হারিয়ে যায় পাথরের মাঝে ঘুম
এই জল এই বারিষ্

তেরে বিনা জিন্দেগি সে শিকওয়া্

তুমি নিয়ে যা যা ডালপালা, বেড়ে যাওয়াকে বাড়িয়ে

তো নেহি…

আজ থেকে তেইশে জুন পেরিয়ে গেলাম এই সাইলেন্স

সাঁঝবাতি, উলু দিচ্ছে। আলোটা অল্প হয়ে গ্যালো

প্রশস্ত চারিদিক। নদী। নৌকাও, তবু

কীভাবে ভাব করি এ ভাবুকে
বুক থেকে বুক শুধুই নিসাঁঝবেলা ইস্টম্যান কালার

রাস্তা ডেকে ডেকে খুলছে ছিটকিনি

একটা যুবতি আলো এদিক সেদিক, বেখুদি মে
তুমকো পুকারে চলে গয়ে

তুমি নাহয় নাই… বা ছিলে
আমি তো জানি কীভাবে আরও একটি পাখি
তোমাকে ঘিরে পাখি হয়ে যায়

ইন্দ্রজিৎ দত্তের কবিতা

আমাদের নতুন বই