লেখক নয় , লেখাই মূলধন

সোহেল ইসলামের কবিতা

খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন
ফিরতে হয় বলেই
ফিরছি
থেকে যেতেই পারতাম
জানালার পাশে ছায়া হয়ে, মাকড়সার ঝুল হয়ে

তাকাতে না জানি,
ভাবি, কতটা অসহায় হলে মানুষ
                                       নিজেকে জাহির করার কথা ভাবে।
এবার দেখা হলে
ফেরত চেয়ে নেব
শব্দ ফেরত চাইব না, সময়ও না
ডেটলের গন্ধ লেগে থাকা যে আঙুলে তুলো হয়ে জড়িয়ে ছিলে
বৃষ্টিতে খড়ের ছাউনি হয়ে ছিলে
তার জন্য একটা জীবন এনে দিয়ো
                                             মানুষ এর বেশি আর কী চাইতে পারে ?
আজ জীবনের কথা থাক
স্বপ্নের কথাও থাক
কোত্থাও যাইনি আমরা
পাশাপাশি হাঁটতে হাঁটতে
                               কবে পথ আলাদা হয়ে গেল
কবে পাহাড়ি নদীর নীচে পাথরের মতো ঘুমিয়ে গেলাম, আমরা?
সাদা কালো
এক-দু’পা হাঁটতে হাঁটতেই উড়াল দিচ্ছি
দু’জন দু’দিকে
কালো পালকে মুড়ে আমি,
তোমারও শরীর সাদা পালকে ঢাকা ।
মুক্তি
এতটা সময়ের পরও
শুধু চরিত্রে আছি, সংলাপ নেই কোনও
জমিতে আলু পুঁতে আছে― চুপচাপ ঠান্ডা
ঝোলে মিশে যাওয়া ছাড়া মুক্তি নেই যার
গুগুল ম্যাপে যা যা নেই
নদী বললে নদী
রেখা বললে রেখা
কাছে গেলে তোমাকে ভেসে থাকা কলমি শাক মনে হয়
দূরে গেলে―
                                শুধুই একটা টান
তুমি,তুমি থাকো না,
যত কাছে আসতে থাকি―
একটা কুয়ো, পেখম মেলে বসে
ঘোমটা টানা বউ, কুয়াশা রেখে তুলে নিয়ে যায় জল
বালতি আর জলের রাজনীতি সে জানতেও পারে না

সোহেল ইসলামের কবিতা

আমাদের নতুন বই