Categories
গল্প

অর্ণব রায়ের গল্প

সাইনেস্থেশিয়া

চিত্র: রেনে মাগরিত

—বাবা সাড়া দিচ্ছে না যে, ও বকুল। আমার কিন্তু ভালো ঠেকছে না। তুই ছুট্টে যা, মাকে ডেকে নিয়ে আয়। ওই দেখো, দাঁতে দাঁত লেগে গিয়েছে। শিগগির চামচটা দিয়ে যা। এখনও হাঁ করে দাঁড়িয়ে আছিস? বাবা, ও বাবা, সাড়া দাও। এই দেখো, আমি টুনি, বাবা!

Categories
কবিতা

ইশরাত তানিয়ার গল্প

একটি শব্দের পোস্ট রিয়েলিটি

চিত্র: রেনে মাগরিত

দক্ষিণের জানলার দুটো পাল্লা হাট করে খোলা। ঘটনাটা তেমন কিছু না— তবে কি, আবহাওয়ার মন বুঝে জানলাটার বন্ধ থাকারই কথা। হয়তো ঘরে কেউ ঢুকেছিল। স্যাঁতস্যাঁতে গুমোট কাটাতেই ওই মেলে দেয়া। কী একটা ঝুমুর ঝুমুর শব্দ সেখানে খেলে যায়। অস্পষ্ট। কয়েকটা দ্রুত আর ছোটো নিঃশ্বাসই যেন পড়ল কারো। তৃপ্তির না অতৃপ্তির বোঝা যায় না।

Categories
গল্প

সরোজ দরবারের

বারিদের বন্ধুরা

চিত্র: রেনে মাগরিত

হিসেব মেলে না। মেলে না বলা ভুল, হিসেব রাখাই হয়নি। যে-সব হিসেব মিলে যায় তারা অঙ্কপাড়ার লক্ষ্মী ছেলে। বাঁ-পাশ, ডান-পাশ হুবহু এক। সবুজ কালির টিকচিহ্ন। কিন্তু যে-সব হিসেব রাখা হয় না, একটা সময় দেখা যায়, সেই হিসেব রাখাই জরুরি ছিল। এদের অঙ্ক হয় না। এদের মেলানো যায় না। কিন্তু মেলানো দরকারি ছিল।

Categories
গল্প

রাহুল দাশগুপ্ত’র গল্প

প্রতিবিম্ব

চিত্র: রেনে মাগরিত

ছেলেটি রাস্তা দিয়ে হাঁটছিল। আর তখনই শোনা গেল এক বিরাট বিস্ফোরণের শব্দ। ছেলেটির চোখের সামনে গোটা শপিং মলটা উড়ে গেল। প্রচণ্ড শব্দের পর এখন সেখানে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছে। লোকজন। পাগলের মতো দৌড়াদৌড়ি করছে। ধোঁয়ায় ভরে গেছে চারপাশ।

Categories
গল্প

অভীক দত্তের গল্প

পাহাড়বাড়ির রহস্য

চিত্র: রেনে ম্যাগরিত


বাগডোগরায় পৌঁছেছিলাম বিকেল পাঁচটা নাগাদ।
ইচ্ছে করলে শিলিগুড়িতে থাকাই যেত কিন্তু পাহাড়ের অমোঘ আকর্ষণে বিকেল বিকেলই রওনা দিয়ে দিলাম।
সেবক রেলগেট, তিস্তা বাজারের জ্যাম পেরিয়ে যখন কালিম্পং পৌঁছলাম তখন রাত ন’টা বেজে গেছে। পাহাড়ের রাতের মধ্যে একটা অদ্ভুত স্তব্ধতা আছে।

Categories
গল্প

অভিষেক ঝা’র গল্প

হারাম

চিত্র: রেনে ম্যাগরিত

বড়ো প্রার্থিত ঘন এক ব্যক্তিগততম ফিসফিস হয়ে বেরিয়ে এল, “আল্লাহ”। এইসব ইটপাথালি অবশ্য পাঁচ ছ’শ বছর ধরে হরেক ফিকিরের ফিসিফিস শুনে আসছে। তাই আলাদা করে তারা কান দিল না। নিজেদের ঝুরঝুরে হয়ে যাওয়া ফাঁকগুলোকে খানিক জোরে জোরে নিঃশ্বাস নিতে দিয়ে সেই ফিসিফিসকে নিজেদের ভিতর নিয়ে নিল।

Categories
অন্যান্য

উৎসব সংখ্যা ২০১৯

utsav

সম্পাদকীয়

প্রকাশ হল ‘উৎসব সংখ্যা ২০১৯’। সবার শেষে। একদম অন্তিমলগ্নে। সত্যি বলতে, উৎসব আমাদের মনে বিরাজ করে। মন যখনই ফুরফুরে হয়ে ওঠে তখনই উৎসব। এবার প্রথম ‘উৎসব সংখ্যা’ ওয়েবে প্রকাশ পেল।

Categories
কবিতা

বেবী সাউ-এর কবিতা

কালীকা

চোখেতে হারাই আজকাল

অনেক অনেক শ্মশান ভেঙে
রাজপথ ভেঙে
জোগাড় করেছি শেয়ালের উজাগর চোখ

Categories
কবিতা

পরিতোষ হালদারের কবিতা

অস্মিতি

আরশিজগৎ থেকে হেঁটে আসা আমি, আমারও নির্মাণ আছে— দুই পায়ে তাণ্ডব প্রণালী। দূরে যাব,
তবু অশোকস্তম্ভের তলে রেখে যাব দীর্ঘ-নিঃশ্বাস।
আমাকে রাত্রি দাও…
হারিয়ে যাওয়ার মতো অস্মিতি দাও।

Categories
কবিতা

দেবোত্তম গায়েনের কবিতা

আশ্চর্য এক চিতা-কে কেউ বাঘ মানতেই চাইছে না…


ব্যথার মতো করে যে-ছবি দেখি তা মানুষের স্বভাব। ফলের টক নিয়ে অর্ধেক রেখে যায় বাদুড় সংসারের মাথায়। আহারের অনার্য; শরীর দিয়ে প্রবেশ করতে চায়; ঘাসের জন্মের মতো চাতুরি পায়ের শীতল দুঃখ ছুঁয়ে প্রতিবাদে ন্যুব্জ হয়ে এলে তুমিই আসো আবার উপঢৌকন নিয়ে।